ব্যক্তিকেন্দ্রিক মার্কেটিংয়ের এ যুগে চ্যাটবট হাতেগোনা মাত্র কয়েকটি মাধ্যমের অন্যতম, যার দ্বারা কোনো ব্র্যান্ড ও ব্যবহারকারী, কিংবা বিক্রেতা ও ক্রেতার মধ্যে সরাসরি সংযোগ স্থাপন করা সম্ভব।

কিন্তু এই আধুনিক প্রতিযোগিতার বাজারে, যেখানে সবাই কেবল ব্যক্তিগত ফায়দা লোটার কাজে ব্যস্ত, সঠিক চ্যাটবট বিল্ডার খুঁজে পাওয়া হয়ে উঠেছে বড্ড কঠিন একটি কাজ। এক সময় যেমন হাজার হাজার ওয়েব ডেভেলপার গজিয়ে উঠেছিল, যাদের মধ্যে সঠিক কাজ জানত মাত্র ৫ থেকে ১০ শতাংশ, বর্তমান সময় চ্যাটবট বিল্ডিংয়েও প্রায় একই রকম চিত্র দেখা যাচ্ছে। আপনাকে চ্যাটবট বানিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেবে অনেকেই, এবং নানা প্রলোভনও দেখাবে আপনি রাজি করানোর উদ্দেশ্যে। কিন্তু দিন শেষে মানসম্মত কাজ আপনি পাবেন কি না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।

কিন্তু এরপরও, সময়ের সাথে সাথে কিছু চ্যাটবট বিল্ডারের আবির্ভাব ঘটেছে, যারা এ আঙ্গিনায় নিজেদের একটি শক্তপোক্ত অবস্থান গড়ে তুলেছে, এবং যাদের উপর আপনি সহজেই ভরসা করতে পারেন। চলুন জেনে নিই সময়ের সেরা এমনই কিছু চ্যাটবট বিল্ডারের সম্পর্কে

চ্যাটফুয়েল

চ্যাটফুয়েল; Image Source: Bot Tutorials

চ্যাটফুয়েল হলো ফেসবুক মেসেঞ্জারের একটি বট বিল্ডার, যাদের লক্ষ্য হলো বট নির্মাণকে সহজ করে তোলা। চ্যাটফুয়েল ব্যবহারের জন্য আপনার আলাদা করে কোনো কোডিং দক্ষতা থাকারই প্রয়োজন নেই। তাছাড়া এর বিনামূল্য সংস্করণটি দিয়েই আপনি ৫০০০ সাবস্ক্রাইবার পর্যন্ত যেকোনো ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন। তবে হ্যাঁ, আপনার বটে ব্যবহারকারীরা চ্যাটফুয়েলের ব্র্যান্ডিংটা দেখতে পাবে।

চ্যাটফুয়েলের একটি পেইড সংস্করণও রয়েছে, যার শুরু হয় মাসিক ১৫ ডলার দিয়ে। এই সংস্করণে অর্থের পরিমাণ যত বাড়বে, আপনি তত বেশি সাবস্ক্রাইবারের সাথে সংযোগ স্থাপন করতে পারবেন। এছাড়া অডিয়েন্স ইনসাইট, প্রায়োরিটি সাপোর্টসহ আরো কিছু ডাটা ম্যানেজমেন্ট ফিচারও আপনি পাবেন এখানে।

ফ্লো জো

ফ্লো জো; Image Source: Blissfully

ফ্লো জো হতে পারে আপনার চ্যাটবট নির্মাণের একটি সামগ্রিক সমাধান। এখানে আপনি চ্যাটবট নির্মাণ, হোস্টিং থেকে শুরু করে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মের স্থানান্তর – সকল সুবিধাই পাবেন। অর্থাৎ এটি ব্যবহার করলে আপনার বিচরণ কেবল ফেসবুক মেসেঞ্জারেই সীমাবদ্ধ থাকবে না। বরং আপনি আপনার নিজের ওয়েবসাইটের জন্যও চ্যাটবট উইজেট নির্মাণ করতে পারবেন, কিংবা কোনো থার্ড-পার্টি প্ল্যাটফর্মের সাথেও এটিকে একীভূত করতে পারবেন। তাছাড়া ব্যবহারকারীরাও আপনার আপনার বটটিকে অন্যদের সাথে শেয়ার করতে।

ফ্লো জোর ইন্টারফেসটি ব্যবহারের জন্য খুবই সহজ, এবং এরও একটি বিনামূল্য সংস্করণ রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি এর বিভিন্ন ফিচার সম্পর্কে একটি প্রাথমিক ধারণা পেয়ে যেতে পারবেন। তাছাড়া আপনি বিনামূল্য সংস্করণের মাধ্যমে সকল ফিচারও পাবেন, তবে তা কেবল ৫০০টি মিথস্ক্রিয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। অবশ্য আপনি এখানে পাঁচটি পৃথক বট তৈরি করতে পারবেন। এর পেইড সংস্করণটি শুরু হয় ১৯ ডলার প্রতি মাস মূল্যে, যেখানে আপনি ৫০০০টি মিথস্ক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারবেন।

বটসিফাই

বটসিফাই; Image Source: Botlist

বটসিফাই আরো একটি সাধাসিধা বিল্ডার, যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য কিংবা ফেসবুক মেসেঞ্জারে খুব সহজেই নিজের বট তৈরি করে নিতে পারবেন। এছাড়া এর রয়েছে চমৎকার কিছু ফিচার যা আপনি অন্য কোনো বিল্ডারে খুঁজে পাবেন না। উদাহরণস্বরূপ, আপনি চাইলে শপিফাই, ওয়ার্ডপ্রেস ও অ্যালেক্সাকে একীভূত করতে পারবেন। তাছাড়া রয়েছে আপনার বটের জন্য কনভার্সন ফর্ম, অর্থাৎ কোনো আলাপচারিতায় সরাসরি আপনি বা আপনার কর্মীরাও যেকোনো সময় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

বটসিফাইয়েরও রয়েছে বিনামূল্য সংস্করণ যেখানে সাধারণ ফিচারগুলো পাওয়া যাবে। কিন্তু এক্সক্লুসিভ ও প্রিমিয়াম ফিচারগুলোর জন্য আপনাকে পেইড প্ল্যান নিতে হবে, যার শুরু হয়েছে মাসিক ১০ ডলার থেকে।

চ্যাটার অন

চ্যাটার অন; Image Source: ChatterOn

ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সবচেয়ে দ্রুতগতির বট বিল্ডার বলা যায় চ্যাটার অনকে, যার মাধ্যমে আপনি মাত্র পাঁচ মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে নিজের একটি বট বানিয়ে ফেলতে পারবেন। এখানে ২০টি প্রি-বিল্ট বট রয়েছে যেখান থেকে আপনি আপনার পছন্দসই বটটি বেছে নিতে পারবেন, এবং তারপর আপনি নিজস্ব রুচি অনুযায়ী সেটিকে নানাভাবে কাস্টোমাইজও করতে পারবেন। চ্যাটার অনের রয়েছে নিজস্ব আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ও মেশিন লার্নিং, যা খুবই উন্নত মানের, এবং এর মাধ্যমে আপনি ক্যারোসেল, বাটন, ফটো, জিফ, ভিডিও ইত্যাদি কনটেন্টও ব্যবহারের সুবিধা পাবেন।

আপনি চাইলে এমনকি আপনার বটটিকে মনিটাইজও করতে পারবেন র‍্যাডবটস থেকে বিজ্ঞাপন নিয়ে। অবশ্য অধিকাংশ ব্যবহারকারীই এটিকে সুবিধাজনক বলে মনে করেন না। তবু বাড়তি আয়ের আশায় কিছু মানুষ এটি ব্যবহার করেও। চ্যাটার অনের বিনামূল্য সংস্করণটি দিয়ে যাবতীয় ফিচার এবং ১৫,০০০টি পর্যন্ত মেসেজ আদান-প্রদান করা সম্ভব। ১৫,০০০টি মেসেজ পার হয়ে গেলে আপনাকে স্রেফ প্রতিটি মেসেজের জন্য ০.০০১০ ডলার করে গুনতে হবে।

সিকুয়েল

সিকুয়েল; Image Source: Sequel

চ্যাটার অনের মতো সিকুয়েলও আপনি ব্যবহার শুরু করতে পারেন কিছু চ্যাটবট টেমপ্লেটের মাধ্যমে, এবং পরবর্তীতে আপনি এর বিশেষ ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ এডিটরের মাধ্যমে নিজের পছন্দ মতো আপনার টেমপ্লেটটিকে কাস্টোমাইজ করে নিতে পারবেন। সিকুয়েলের প্রধান লক্ষ্যই হলো ব্যবহারকারীদের সাথে আপনার ব্র্যান্ডের একটি মুখোমুখি আলাপচারিতার অভিজ্ঞতা নিয়ে আসা। আর এজন্য এটি প্রধান দুইটি উপাদান ব্যবহার করে, একটি হলো এর ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েল প্রসেসিং টেকনোলজি, এবং অন্যটি এর ইন্টারঅ্যাকটিভ কনটেন্ট।

প্রকাশকদের জন্য এর রয়েছে একটি বিশেষ টেমপ্লেট। এছাড়া এর রয়েছে একটি পারসোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট, একটি স্টোরি বট, একটি গেম বট, এবং অন্যান্য নানা উদ্দেশ্যে রয়েছে আরো নানা রকমের টেমপ্লেট। তবে প্রাথমিকভাবে ব্যবহারকারীকে আকৃষ্ট করার চেয়ে, ইতিমধ্যেই আগ্রহী ব্যবহারকারীদেরকে ধরে রাখাই এর প্রধান উদ্দেশ্য। আপনি চাইলে আপনার সিকুয়েল বটগুলোকে প্রকাশ করতে পারবেন মেসেঞ্জার, কিক, টেলিগ্রাম এবং ভাইবারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here