LATEST ARTICLES

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের শ্রেষ্ঠতম পাঁচ সুবিধা

মানবসমাজের সামগ্রিক উন্নয়ন-অগ্রগতিতে এটি অবদান রাখছে তো বটেই, পাশাপাশি বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের জন্য নতুন নতুন সব সম্ভাবনার দ্বারও উন্মোচন করছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স।

স্মার্টফোনের জন্য সেরা কিছু আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স অ্যাপ

মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনই হলো এই মুহূর্তে একমাত্র মাধ্যম, যেখানে আপামর সর্বসাধারণ সকলে জেনে বুঝেই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহারের অভিজ্ঞতা লাভ করে থাকে। আর সেজন্য, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সমৃদ্ধ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করা ডেভেলপারদের জন্য সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং কাজ।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে কাজ করছে যে শীর্ষ কোম্পানিগুলো

বিল গেটস, মার্ক জাকারবার্গ থেকে শুরু করে অনেক প্রযুক্তি জগতের শীর্ষস্থানীয় নেতাই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ভবিষ্যৎ নিয়ে দারুণ আশাবাদী। আর দারুণ সম্ভাবনাময় হওয়ার কারণে, বিশ্বের বড় বড় সব কোম্পানিও এখন এই শিল্পে বিনিয়োগ করতে শুরু করে দিয়েছে।

কেন মেশিন লার্নিং-ই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ভবিষ্যৎ?

যন্ত্র যদি নিজে নিজে ডাটা মাইনিংয়ের মাধ্যমে সকল ডাটা বিশ্লেষণ করে নিজেকে সমৃদ্ধ করে, তবে তার পক্ষে যেকোনো সমস্যার সমাধান বের করে ফেলা সম্ভব। আর এভাবে নিজেকে সমৃদ্ধ করার নামই হলো মেশিন লার্নিং।

রোহিত প্রসাদ: অ্যালেক্সার জনক যে ভারতীয়

যেকোনো এক বা একাধিক ব্যক্তির হাত ধরে উদ্ভাবিত হয়েছে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের অন্যতম প্রতিশ্রুতিশীল এই প্রযুক্তিটি। সেক্ষেত্রে উত্তরটি হওয়া উচিৎ এমন যে, অ্যালেক্সার উদ্ভাবক রোহিত প্রসাদ, যিনি তার সহকর্মী টনি রিডকে সাথে করে আজ থেকে পাঁচ বছরে আগে, ২০১৪ সালে প্রাণসঞ্চার করেছেন অ্যালেক্সায়, দিয়েছেন তাকে অন্যের কথা শুনে সে অনুযায়ী কাজ করার ক্ষমতা।

যেখানে মানুষের চেয়ে এগিয়ে গেছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স

বিভিন্ন ক্ষেত্রেই এখন মানুষের চেয়ে এগিয়ে গেছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। অর্থাৎ বলা চলে, শিষ্যের কাছে এখন হার মানছে গুরু।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সম্পর্কে যত ভুল ধারণা

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এখন আর কোনো বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী নয়। ধীরে ধীরে এটি পরিণত হচ্ছে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশে। কিন্তু সমস্যা হলো, কম্পিউটার বিজ্ঞানের এই বিশেষ ও সর্বাধুনিক ধারাটির ব্যাপারে...

মানুষের চাকরি কেড়ে নেবে যন্ত্র?

অনেকেরই ধারণা, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কেড়ে নেবে মানুষের চাকরি। আসলেই কি তা সঠিক?

স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হচ্ছে যেসব আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের কথা শুনতে শুনতে অনেকের মনেই হয়তো আফসোস হয়, "ইস, আমার কাছেও যদি এমন কোনো যন্ত্র থাকত!" এরকম যাদের মনে হয়, তাদের জন্যই এই লেখা।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কি মানুষের থেকে বেশি ‘স্মার্ট’?

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের পক্ষে কি রক্ত-মাংসের মানুষের চেয়ে 'স্মার্ট' হওয়া সম্ভব? অতি পরিচিত একটি প্রশ্ন। এবং এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আমরা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স শব্দদ্বয় নিয়ে বেশি মাথা...

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের সমৃদ্ধিতে অ্যালান টুরিংয়ের অবদান

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স তথা যন্ত্রের বুদ্ধিমত্তা যাচাই, এবং এর মাধ্যমে যন্ত্রকে আরো বুদ্ধিমান ও কার্যকর করে তুলতে টুরিংয়ের মতো এত বেশি অবদান রাখেননি আর কেউই।

প্রাচীন গ্রিক উপকথায় আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স

হাল আমলের প্রযুক্তি বিষয়ক চাঞ্চল্য যে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সকে কেন্দ্র করে, সেটির পিছনেও প্রাচীন গ্রিকদেরই প্রাথমিক অবদান সবচেয়ে বেশি, এবং তারাই হাজার হাজার বছর আগে বিভিন্ন অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যাপারে অব্যর্থ ভবিষ্যদ্বাণী করে গেছে।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স মানে হলো কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। অর্থাৎ কৃত্রিমভাবে কোনো যন্ত্র, বিশেষত কম্পিউটার যখন মানুষের ন্যায় বুদ্ধিবৃত্তিক সক্ষমতার অধিকারী হয়ে ওঠে, তখন সেটিকে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বলা হয়।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স: যেভাবে কম্পিউটার হয় মানুষের মতো বুদ্ধিমান

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স মানে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। কিন্তু কীভাবে যন্ত্র হয়ে ওঠে মানুষের সমান বুদ্ধিমান?